গুগল এডসেন্স এর কাজ কি ? কিভাবে এডসেন্স পেতে পারেন ?

গুগল এডসেন্সের কাজ কি

গুগল এডসেন্স এর কাজ কি এবং গুগল এডসেন্স কি ? এই সমস্ত বিষয়ে নতুনদের কিংবা লেখালেখি করে অর্থ উপার্জন করার মানুষদের কৌতুহলের শেষ নেই। আপনার ও যদি এই বিষয়ে জানার খুব ইচ্ছা থাকে। তাহলে আপনি সঠিক জায়গায় এসেছেন। 

আজকে আমরা গুগল এডসেন্স কি? গুগল এডসেন্স এর কাজ কি ? কিভাবে এই এডসেন্স থেকে টাকা ইনকাম করবেন। সেই সম্পর্কিত অনেক বিষয় নিয়ে আলোচনা করবো। যা জানলে আপনি অবশ্যই গুগল এডসেন্স থেকে অর্থ উপার্জন করতে পারবেন। তাই সাথে থাকবেন আশা করি আপনার উপকারে আসবে। 

গুগল এডসেন্স কি ?

সহজ ভাষায় গুগল এডসেন্স হলো গুগল কোম্পানীর একটি বিজ্ঞাপণ প্রচারকারী প্লাটফর্ম। যেখানে সারা বিশ্বের ব্যবসায়ীরা তাদের ব্যবসার বিজ্ঞাপণ প্রচার করার জন্যে গুগল কোম্পানীর এই এডসেন্স প্লাটফর্মে টাকা দিয়ে এড বা বিজ্ঞাপন দিয়ে থাকে। 

এবার গুগল কোম্পানী ওই বিজ্ঞাপণ (এড) গুলি তাদের লিস্টেড করা কিংবা গুগল এপ্রোভালকৃত  ওয়েবসাইট গুলিতে তা প্রচার করে। 

গুগল এডসেন্স এর কাজ কি ?

গুগল এডসেন্স এর কাজ কি এই বিষয়ে প্রাথমিক ভাবে ধারণা আমি আপনাদের উপরে বলেছি। এবার আসি এডসেন্স এর কাজ নিয়ে। গুগল এডসেন্স এর কাজ হলো মানুষ যে সমস্ত ওয়েবসাইটে লেখা পড়তে আসে। 

অথবা আমরা যে কোনো বিষয় নিয়ে অনলাইনে পড়তে আসি কিংবা কোনো ইনফরমেশন জানতে আসি। ওই ওয়েবসাইটে গুগল কোম্পানী তাদের বিজ্ঞাপন গুলি (এড) দেখিয়ে প্রচার করে থাকেন। 

সেই বিজ্ঞাপন গুলি বা এড গুলি আমরা পড়তে এসে দেখি। প্রচার করে গুগল কোম্পানি। এই দেখার মাধ্যমে ওই ওয়েবসাইটের মালিক একটা টাকা ইনকাম করে। এইভাবে সহজভাষায় বললে গুগল এডসেন্স কাজ করে।

এর আরো বিস্তারিত ভাবে আমরা বলার চেষ্টা করবো। কিভাবে আপনি একই ভাবে এই গুগল এডসেন্স এর মাধ্যমে টাকা ইনকাম করবেন। 

গুগল এডসেন্স কিভাবে টাকা দেয় ?

গুগল এডসেন্স কিভাবে টাকা দেয় এই সম্পর্কে অনেকের জানা নেই। বিশেষকরে নতুনদের। আপনি আপনার ওযেবসাইটের হেডার অংশে একটি গুগল এডসেন্স কোম্পানির কোড সেটাপ করবেন খুব সহজ। এরপর থেকে আপনার ওয়েবসাইটে পাবলিশার হিসেবে আপনি টাকা পাবেন। এড দেখার মাধ্যমে।

কিন্তু কিছু শর্ত এখানে বলা বাহুল্য ,যে আপনার সাইটে ইউজার আপনার ওয়েবসাইটে কিংবা কন্টেন্ট গুলির সার্চ ভলিয়ামের উপর ভিত্তি করে গুগল এডসেন্স কোম্পানি এডভেটাইরজমেন্ট প্রদর্শন করবে। 

এখানে গুগল এডসেন্স কোম্পানী দুটি মেট্রিক্স এর উপর ভর করে টাকা দিয়ে থাকে। নিয়মে এদের এড ক্লিকের মাধ্যমে একটি হল CPC (cost per click ) এবং আর একটি হলো EPC (earn per click ). এখানে পাবলিশার নিয়ম অনুসারে পাই হচ্ছে ৬৮%.তার মানে হলো একটি এডের  মূল্য যদি ১ টাকা হয় তাহলে পাবলিশার পাবে EPC .৬৮%(পয়েন্ট আটষট্টি পার্সেন্ট )। 

আরো পড়ুনঃ মোবাইল দিয়ে কিভাবে ফ্রিল্যান্সিং করা যায় । 2023 সালে আদৌ কি সম্ভব ? Completely Guide

এডসেন্সের জন্য এপ্লাই কিভাবে করবো ?

আগেই বলে রাখা ভালো যে আপনি যদি গুগল এডসেন্স এর জন্যে এপ্লাই করবেন তাহলে আপনার একটি সার্চ ভলিয়ম মোটামুটি ভাল আছে সেই রকম একটি ওয়েবসাইট থাকতে হবেযেখানে আপনি কন্টেন্ট লিখেন  পাব্লিশ করেন । অথবা আপনার ইউটিউব চ্যানেল থাকতে হবে।

এবং যেখানে সাধারণত ১০০০ সাবক্রাইবার হতে হবে না হলে অন্যথায় নই। এই সমস্ত কিছু যদি আপনার থাকে তাহলে আপনি খুব সহজে গুগল এডসেন্সর জন্যে এপ্লাই করতে পারবেন। 

গুগল এডসেন্স এপ্লাইর  জন্যে আপনাকে কয়েকটি ধাপ এগুতে হবে। যেমন 

আপনার জিমেইল একাউন্ট খোলা রাখুন এবার আপনি Google Adsense এ যান। 

সাইনআপ করুন বা লগিন করুন 

একাউন্ট টাইপ সিলেক্ট করুন (নিজের জন্যে হলে Individual আর কোম্পানী হলে company)

নাম ও ফোন নাম্বার দিন (নাম আপনার NID তে যেটা আছে ,নাম্বার ভেরিফিকেশন করে নিবেন যেটা সব সময় সচল থাকে )

ঠিকানা দিন 

এবং  বিজ্ঞাপন দেখানোর মাধ্যম (যেমন ওয়েবসাইট বা ইউটিউব) 

সবশেষে টাইম জুন ঠিক করে দিন। 

গুগল অ্যাডসেন্স পাবার শর্ত

গুগল এডসেন্স পাবার শর্ত অনেক রকম আছে। গুগল কোম্পানি চায় না যে আপনার ওয়েবসাইট এ কোনো রকম ত্রুটি থাকুক। যার কারণে আপনার ওয়েবসাইটে ভবিষ্যতে ট্রাফিক বা ভিজিটর দিন দিন কমে যায়। তাই গুগল এডসেন্স কোম্পানী কিছু শর্ত সাপেক্ষে তাদের এডসেন্স এপ্রভাল দিয়ে থাকেন। 

  • প্রথম ওয়েবসাইট টি কিংবা ইউটিউব চ্যানেল টি আপনার নিজের হতে হবে। অন্যের নামে কোনো ওয়েবসাইট বা ইউটিউব চ্যানেল দিয়ে আপনি এপ্লাই করলে হবে না। 
  • অবশ্যই গুগল এডসেন্স একাউন্টি আপনার নিজের নাম NID ব্যবহার করে করবেন। অন্যতায় যার নামে হবে সেই টাকা তুলতে পারবেন। 
  • অবশ্যই আপনার কন্টেন্ট ইউনিক হতে হবে। কোনো কপি কন্টেন্ট হবে না। বা কোনো লেখা অন্যের কাজ থেকে চুরি করে এনে ওই ওয়েবসাইটে পাবলিশ করলে হবে না। যেই লেখা গুলি আগে গুগল ইনডেক্স করেছিল। 
  • ১৮ বছরের হতে হবে অবশ্যই না হলে আপনার বাবা কিংবা মায়ের বা আপনার বিশ্বস্ত আত্মীয় স্বজনের NID দিয়ে করলে ও হবে।  
  • কোনো এডাল্ট কন্টেন্ট বা জুয়া সম্পর্কিত কোনো তথ্য থাকলে এডসেন্স এপ্রোভ হয় না। এইগুলি গুগলের নীতির বিরোধী। 
  • তাছাড়াও কিছু টেকনিকেল SEO এর কাজ আছে সেগুলি দেখে নীতি মেনে চলতে হবে। 

এই নিয়ম গুলি মেনে যদি আপনি ঠিক ঠাক ভাবে গুগল এডসেন্স শর্ত গুলি পালন করেন। তাহলে অবশ্যই আপনি গুগল এডসেন্স পাবেন।

তবে নতুন কোনো ওয়েবসাইটের জন্যে এই গুগল এডসেন্স এপ্রোভ করতে কমপক্ষে ১ থেকে ১৪ দিন পর্যন্ত সময় নেয়। 

কারণ গুগল এডসেন্স কোম্পানী আপনার ওয়েবসাইট বা ইউটিউব চ্যানেল ভালোভাবে মনিটাইজ করবেন। এদের নিজস্ব নীতিগুলি বা শর্ত গুলি ঠিক আছে কিনা তা ভালো করে পরীক্ষা করে দেখবেন। 

Google এডসেন্সের থেকে কিভাবে টাকা আয় করবেন ?

গুগল এডসেন্স থেকে কিভাবে টাকা ইনকাম করা যায় এই বিষয়ে বলার আগে বলে রাখা ভালো যে,উপরের বর্ণিত সমস্ত কথা গুলি কেবল মাত্র এই বিষয়ে এসে পৌঁছানোর জন্যে। যে কিভাবে আপনি এই গুগল এডসেন্স থেকে আয় করতে পারবেন। 

অনলাইনে অনেক রকম কাজ আছে কিন্তু সব কাজের মধ্যে সবচেয়ে সহজ মাধ্যম হলো এই গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে টাকা আয় করা। কেননা অন্য সব ফ্রিল্যান্সিং কাজের মধ্যে আপনার ক্লাইন্টকে নানা উপায়ে খুশি করার জামেলা পোহাতে হয়। 

কিন্তু এই গুগল এডসেন্স এর মাধ্যমটিতে সেটি নেই। এটি সম্পূর্ন আপনার নিজের ব্যক্তিগত। এই সেক্টরে কেউ আপনাকে কিছু বলার নেই। আপনি যা জানেন হতে পারে সেটি বাংলা কন্টেন্ট বা ইংরেজি বা যেকোনো লেখা আপনার ভাষায় লিখে সেটি আপনি ওয়েবসাটের মাধ্যমে ব্লগিং করে সেখানে গুগল এডসেন্স এর মাধ্যমে টাকা আয় করতে পারবেন। 

এবং অনলাইন জগতে এটি একটি দীর্ঘদিনের জন্যে পরিকল্পনা। এই এডসেন্সের মাধ্যমে আপনি একটি পেসিভ ইনকাম করতে পারবেন। আপনার ভিজিটর যত বেশি আপনার ইনকাম ও তত বেশি হবে। 

আপনি পাবলিশার হয়ে আপনার এই ওয়েবসাইটে বা কন্টেন্ট এর মাধ্যমে আপনি বিজ্ঞাপন দেখিয়ে আয় করতে পারবেন। এটি এখন মানুষের খুব জনপ্রিয় এবং সহজ একটি মাধ্যম। 

Google AdSense ব্যবহারের সুবিধা কী?

গুগল এডসেন্স ব্যবহারের অনেক সুবিধা রয়েছে। সেগুলি নিচে দেওয়া হলো

  • গুগল এডসেন্স এর জন্যে আপনার কোনো প্রোডাক্ট থাকতে হবে না। 
  • গুগল এডসেন্স ব্যবহার করতে আপনার কোনো টাকা ইনভেস্ট করতে হবে না। 
  • গুগল এডসেন্স এর জন্যে পাবলিশার হিসেবে আপনার কোনো ফি দিয়ে একাউন্ট করতে হবে.
  • আপনি চাকরি করার পরেও ঘরে বসে নিজের মত করে ইনকাম করতে পারবেন। 
  • এডগুলি রেস্পন্সিভ হওয়াতে যে কোনো ডিভাইসের জন্যে খাপ খায়। 

আরো অনেক সুবিধা আপনি ভোগ করতে পারবেন এই গুগল এডসেন্স ব্যবহার করার মাধ্যমে।

তবে আপনি যাই বলি না কেন আপনি বাস্তবে যখন কাজে লেগে পড়বেন তখন আপনি আরো অনেক সুবিধা নিজে খুঁজে পাবেন।

শেষ কথা

গুগল এডসেন্স এর কাজ কি সেই সম্পর্কে আমরা অনেক আলোচনা করেছি।

যাই হোক আমি মনে করি এই গুগল এডসেন্স হলো আপনার জীবনের জন্যে একটি গুরুত্বপূর্ণ দিক যা সহজভাবে সরল ভাবে আপনি নিজের মনের মত করে সাজিয়ে অর্থ উপার্জন করতে পারবেন। 

প্রায় জিজ্ঞাসিত প্রশ্নাবলী

গুগল এডসেন্স একাউন্ট কি

এটি হলো পাবলিশার একাউন্ট। যেখানে আপনি একজন পাবলিশার হয়ে এড পাবলিশ করবেন। 

গুগল এডসেন্স এর মাধ্যমে কত টাকা ইনকাম করা যায় ?

কত টাকা ইনকাম করা যায় সেটি হচ্ছে সম্পূর্ণ আপনার বিষয়। আপনি যত বেশি ভিজিটর আপনার ওয়েবসাইটে নিয়ে আসতে পারবেন ততবেশি আপনার ইনকাম হবে। হতে পারে সেটি ২০০০০  হাজার থেকে আরো বেশি। অনেকে ১ লক্ষ টাকার উপরেও এই গুগল এডসেন্স এপ্রোভ নিয়ে ইনকাম করে। 

গুগল এডসেন্স পাওয়ার উপায় কি ?

গুগল এডসেন্স পাওয়ার জন্যে গুগল এডসেন্সের কিছু নীতিমালা রয়েছে সেগুলি পড়ে আপনি ঠিকমত শর্ত পূরণ করলেই গুগল এডসেন্স পেতে পারেন।

আরো জানতে ঘুরে আসুন এফিলিয়েট মার্কেটিং কেন করবো এবং কেন এই সেক্টর খুব জনপ্রিয়

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *