ঘরে বসে অনলাইন ব্যবসা করুন । নিজে সাভলম্বী হোন এবং অন্যকে সহযোগিতা করুন।

ঘরে বসে অনলাইন ব্যবসা

আসলামুআলাইকুম আশা করি ভাল আছেন। নিশ্চয় আপনার ব্যবসা করার মানসিকতা রয়েছে তাই এই আর্ঘটিকেলে ঘরে বসে অনলাইন ব্যবসা সম্পর্কে আপনি পড়তে এসেছেন।

কিভাবে ঘরে বসে অনলাইন ব্যবসা করবেন। কারণ এখন যুগের পরিবর্তনে এবং প্রযুক্তির হাওয়াই মানুষের ধারণা পাল্টেছে। 

কিভাবে আপনি ঘরে বসেই আপনি কিভাবে অনলাইনের মাধ্যমে ব্যবসা করবেন। এখন আর মানুষের দ্বারে গিয়ে আপনাকে মার্কেটিং করতে হবে না।

নিজেই এক জায়গা থেকে ব্যবসা করতে পারবেন। এবং কি কি ব্যবসা আপনার জন্যে খুব প্রযোজ্য সেটা নিয়ে এই নিবন্ধে বিস্তারিত আলোচনা করবো।

আশা করি আপনার উপকার হবে বলে মনে করি তাই সাথেই থাকুন। 

ঘরে বসে অনলাইন ব্যবসা কি 

অনলাইন ব্যবসা কি ? সেটা নিয়ে এবার আলোচনা করি। হয়ত আপনার পূর্বের ধারণা থাকতেই পারে অনলাইন ব্যবসা কি ?

তারপর ও একটু আলোচনা করি। অনলাইন মানে হলো সবার সাথে আপনি ভার্চুয়ালি সংযোগ থাকা। প্রয়োজনে এবং অপ্রয়োজনে আপনি সবার সাথে যোগাযোগ রাখতে পারবেন। 

এই অনলাইনের মাধ্যমে। এই সংযোগের মাধ্যমে আপনি আপনার নিজের তৈরী করা ব্যবসা কে প্রচার করে ব্যবসা করতে পারবেন। এখন অনেক কিছুই সহজে আমরা হাতের কাছে পেয়ে যায়। যেমন আপনি কোনো প্রোডাক্টকে অনলাইনের মাধ্যমে সবার কাছে পৌছিয়ে দিতে পারবেন। 

এবং আপনার প্রোডাক্টের তথ্য উপাত্ত্ব আপনি অনলাইনের মাধ্যমে মানুষের কাছে জানিয়ে দিতে পারবেন। ভার্চুয়ালি এই সব কিছু এখন সব কিছু সম্ভব। সেটা হোক লোকালি কিংবা ইন্টারনেশনালি। এটাকেই সার্বিকভাবে অনলাইন ব্যবসা বলে। 

ঘরে বসে অনলাইন এ কিভাবে ব্যবসা করে 

অনলাইন এ কিভাবে ব্যবসা করে সেই প্রশ্ন এখন নতুন ব্যবসায়ীদের মনে থাকে সর্বক্ষণ ।

অনেকভাবে অনলাইনের মাধ্যমে আপনি ব্যবসা করতে পারবেন। অনেক প্রকার ব্যবসা করার নিয়ম এই অনলাইন এ রয়েছে।

যেমন আপনি ফেইসবুকের মাধ্যমে ,ইউটিউবের মাধ্যমে টুইটার এর মাধ্যমে পিন্টারেস্ট এর মাধ্যেম ব্যবসা পরিচালনা করতে পারবেন ।

এক কথায় সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্মের  মাধ্যমে। 

আবার আপনি গুগল কোম্পানিকে টাকা দিয়ে ও আপনি আপনার অনলাইন ব্যবসার প্রচার করতে পারবেন। এখন মানুষ অনেকবেশি সজাগ এবং এডভান্স । অনেক কিছু মানুষ এখন জানে । তাই প্রায় ব্যবসা এখন অনলাইন হয়ে যাচ্ছে। 

অনেকে ফেইসবুকের মাধ্যমে আলাদা করে পেইজ খুলে তাদের প্রোডাক্ট কে প্রমোশন করে।

আবার অনেকে ভার্চুয়ালি অনলাইন মার্কেটারের মাধ্যমে প্রচার করে অনলাইনের মাধ্যমে ব্যবসাকে পরিচালনা করে ব্যবসা করছে। কারণ মানুষ এখন আর বাজারে কিংবা দোকানে গিয়ে কেনাকাটা করে না।

ঘরে বসেই অনলাইন খুঁজ করে তাদের প্রয়োজনীয় প্রডাক্ট সম্পর্কে জানে, বুজে,  খুঁজে এবং খবর নিয়ে তারপর অর্ডার করে। নিমিষেই তারা তাদের কাঙ্কিত বস্তুটি ঘরে অনলাইন অর্ডারের মাধ্যমে পেয়ে যায়।

আপনি ও সেই সুযোগটি কাজে লাগিয়ে আপনার অনলাইন ব্যবসাকে উন্নত করতে পারেন। 

অনলাইন এ মানুষ এখন অনেক কিছুর মাধ্যমে ব্যবসা করে যেমন তাদের ব্যবসা কে উন্নত করার জন্যে ই-কমার্স ব্যবসার ওয়েবসাইট খুলে ব্যবসা করছে।

আবার কেউ কেউ নিজের মতো করে সোশ্যাল মিডিয়া ম্যানেজার এর দ্বারা তাদের ব্যবসাকে অনলাইন সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্মের মাধ্যমে পরিচালনা করে ব্যবসা করছে। এইভাবে মানুষ অনলাইন ব্যবসা করে থাকে। 

ঘরে বসে অনলাইন ব্যবসা করার জন্যে আইডিয়া  

ঘরে বসে অনলাইনে আপনি ব্যবসা করার জন্যে কিছু আইডিয়া এখানে বলার চেষ্টা করবো। অনলাইনে অনেক ব্যবসা রয়েছে যেগুলি খুব লাভজনক আবার কিছু ব্যবসা আছে যেগুলিতে আপনার কোনো টাকা ইনভেস্ট করতে হবে না। 

শুধু নিজের মেধা আর পরিশ্রম কে কাজে লাগিয়ে আপনি অনেক ব্যবসা করতে পারবেন। নিচে কিছু ব্যবসার আইডিয়া এখানে বলা হয়েছে। আশা করি আপনার অনলাইন জগতে ব্যবসার জন্যে কাজে আসবে। 

অনলাইন কোর্সের ব্যবসা 

অনলাইন ব্যবসার ক্ষেত্রে অনলাইন কোর্সের ব্যবসা একটি জনপ্রিয় ব্যবসা এবং এর যথেষ্ট চাহিদা ও রয়েছে।

আপনার কোনো বিষয় সম্পর্কে যদি ভাল ধারনা থাকে যেমন আপনি যদি শিক্ষক হন তাহলে আপনি ধারাবাহিক ভাবে একটি অনলাইন ভিডিও কোর্সের আকারে সেগুলিকে কিংবা ব্লগ আকারে তৈরী করে সেগুলিকে ব্যবসায় পরিণত করতে পারেন।

যাদের প্রয়োজন তারা অনলাইন থেকে কিনে সেগুলি পড়তে পারবেন বা শিখার জন্যে কিনে নিবেন ।

আবার আপনি যদি অনলাইন ব্লগার হোন  তাহলে ব্লগ লিখে অথবা ভিডিও আকারে কোর্স তৈরী করে ব্যবসা করতে পারবেন।

কারণ এখন মানুষ তাদের সমস্ত চাহিদা অনলাইন থেকে পূরণ করে থাকে।

তাই মানুষের সেই চাহিদার উপর ভর করে আপনি ও গুগল থেকে বিজ্ঞাপন দেখিয়ে কিংবা কোর্স বিক্রি করে অনলাইনে ব্যবসা করতে পারেন।   

আরো পড়ুনঃ

কিভাবে ব্লগিং শুরু করবো ? এ টু জেট গাইড

এফিলিয়েট মার্কেটিং কেন করবো এবং কেন এই সেক্টর খুব জনপ্রিয়

এফিলিয়েট মার্কেটিংয়ের ব্যবসা 

তৃতীয় পার্টির প্রোডাক্ট ব্যবসাকে এফিলিয়েট মার্কেটিংয়ের মাধ্যমে ব্যবসা বলে। অন্য কোনো কোম্পানির প্রোডাক্ট কে আপনি প্রোমোশনের মাধ্যমে এফিলিয়েট মার্কেটিং ব্যবসা করতে পারেন।

যেমন কোনো কোম্পনির একটি প্রোডাক্ট সম্পর্কে আপনি ভাল করে জেনে বা আপনি যদি কোনো প্রোডাক্ট সম্পর্কে ভাল লিখতে জানেন ।

তাহলে সেই প্রোডাক্ট সম্পর্কে লিখে সেটি যদি বিক্রি করতে পারেন তাহলে সেখান থেকে আপনার জন্যে একটি কমিশন তারা আপনাকে দেবেন বা আপনি পাবেন।

 এভাবে আপনি এফিলিয়েট মার্কেটিং ব্যবসা করতে পারবেন অনায়াসে। কারণ আমি আপনাকে আগেই বলেছি অনেক ব্যবসা আছে যেখানে কোনো টাকা ইনভেস্ট করতে হয় না। এই এফিলিয়েট মার্কেটিং ব্যবসা ও তার মধ্যে একটি। 

ড্রপশিপিংয়ের ব্যবসা 

অনলাইন ব্যবসার মধ্যে ড্রপশিপিংয়ের ব্যবসা একটি অন্যতম। কারণ এইখানে একইভাবে আপনি কোনো কোম্পানির প্রোডাক্ট কে নিজে কম দামে কিনে আপনি  তার কাছেই স্টক করলেন।

এবং সেই প্রোডাক্ট কে আপনি আবার বেশি দামে বিক্রি করলেন। এবং আপনি কিছু টাকা ইনকাম করলেন বা লাভবান হলেন। 

এখানে কিন্তু আপনি প্রোডাক্ট কে ধরেন নি। অথবা কিছুই করলেন না কিন্তু একই জায়গা থেকে আপনি প্রোডাক্টে সেল করে কিছু টাকার মালিক হলেন।

এইটাকে ই অনলাইন এ ড্রপশিপিংয়ের ব্যবসা বলে। এইভাবে ও আপনি অনলাইনের ব্যবসা করতে পারেন। 

কাপড়ের ব্যবসা  

কাপড়ের ব্যবসা একটি লাভজনক ব্যবসা। এই কাপড়ের ব্যবসা আগে এক জায়গায় সীমাবদ্ব থাকতো।

এখন অনলাইন হওয়ার দরুন সেই একই কাপড়ের ব্যবসা এখন আর এক জায়গায় নাই প্রযুক্তির ছোঁয়ায়। এখন কাপড়ের ব্যবসাকে আপনি অনলাইন ব্যবসায় পরিণত করতে পারেন।

যেমন আপনি একটি সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্মে একাউন্ট খুললেন সেখানে আপনার কাপড়ের ব্যবসা কে প্রচার করুন। 

প্রয়োজনে আপনার ব্যবসাকে সারা বিশ্বে ছড়িয়ে দেওয়ার জন্যে একজন সোশ্যাল মিডিয়া ম্যানেজার নিয়োগ দিন।

তাহলে দেখবেন দিন দিন আপনার ব্যবসা দেশ বাদে বিদেশেও অনলাইন এর মাধ্যমে ব্যবসা ছড়িয়ে পড়ছে।এইভাবে ও অনলাইনের মাধ্যমে কাপড়ের ব্যবসা করতে পারবেন।

তাছাড়াও আপনি গুগল পাব্লিশারের মাধ্যমে আপনার ব্যবসাকে টাকা দিয়ে প্রচার করতে পারবেন গ্লোবালি। 

ভিডিও ব্যবসা 

অনলাইন ভিডিও ব্যবসা এখন খুব চরমে। কারণ ভিডিও দেখে না এমন কেউ আছে বলে আমি মনে করি না।

এখন আপনি যদি কোন বিষয় সম্পর্কে ভাল জানেন তাহলে সেই সম্পর্কে আপনি রিভিও করে ভিডিও করে ও ব্যবসা করতে পারবেন। 

অথবা কোনো প্রোডাক্ট সম্পর্কে রিভিও করেও আপনি ভিডিও ব্যবসা করতে পারেন।

কারণ এখন অনলাইন এই ভিডিও ব্যবসার খুব চাহিদা রয়েছে। অনলাইনে আপনি এই ভিডিওর মাধ্যমে ও ব্যবসা করতে পারবেন।

ঘরে বসে অনলাইন ব্যবসার সুবিধা অসুবিধা গুলি কি ?

ঘরে বসে অনলাইন ব্যবসার সুবিধা 

  • জনবল কম প্রয়োজন হয়  
  • পুঁজি কম লাগে 
  • লাভ বেশি 
  • ব্যবসা নষ্ট হওয়ার ভয় নেই 
  • এক জায়গা থেকে ব্যবসা পরিচালনা করতে পারে

অসুবিধা 

অনলাইন ব্যবসা পরিচালনা করার মানুষের মূল্য একটু বেশি হতে পারে। 

শেষ কথা 

সর্বশেষে বলব ঘরে বসে অনলাইন ব্যবসা পরিচালনা করা খুব সহজ পন্থা।

অনলাইন ব্যবসা ই আপনার কোনো বাড়তি দুশ্চিন্তা নেই। আপনাকে কোনো ব্যবসায়িক মালামাল নিয়ে মানুষের দুয়ারে দুয়ারে ঘুরতে হবে না। 

যা কিছু হবে ভার্চুয়ালি আপনি সবার কাছে আপনার বার্তা পৌছিয়ে দিতে পারবেন মুহূর্তের মধ্যে।

তাই আমি মনে করি বর্তমান যুগে ঘরে বসে অনলাইন ব্যবসা পরিচালনা করুন এবং মনের আনন্দে ইনকাম করুন।  

অনবরত জিজ্ঞাসা 

ঘরে বসে অনলাইন ব্যবসায় কি কোনো ঝুঁকি আছে ?

হ্যা থাকতে পারে।যদি আপনি পচনশীল দ্রব্য অনলাইনে ব্যবসা করেন। আর যদি অপচনশীল দ্রব্য নিয়ে ব্যবসা করেন তাহলে কোনো ঝুঁকি নেই। 

ঘরে বসে অনলাইন ব্যবসা করলে কত জনবলের প্রয়োজন ?

ঘরে বসে অনলাইন ব্যবসা ক্ষেত্রে কত জনবল প্রয়োজন সেটা আপনার ব্যবসার উপর নির্ভর করবে।
ব্যবসা যদি আপনি নিজেই পরিচালনা করতে পারেন তাহলে জনবলের প্রয়োজন নেই।
আর যদি ব্যবসা আরো বৃদ্বি করতে চান তাহলে আপনার ব্যবসার উপর ভিত্তি করে জনবল নিয়োগ দিতে পারেন ভার্চুয়ালি। 

অনলাইন ব্যবসায় লাভ ক্ষতি কেমন ?

এই অনলাইনে ব্যবসা করলে লাভ বেশি ক্ষতি কম। 

অনলাইন ব্যবসায় মার্কেটিং কিভাবে করে ?

অনলাইন ব্যবসায় আপনি সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্ম গুলির মাধ্যমে ও মার্কেটিং করতে পারবেন।
যেমন ফেইসবুক,টুইটার এবং লিঙ্কডিন আরো অনেক মিডিয়া প্লাটফর্ম এর মাধ্যেম প্রচার করে ও করতে পারেন।
আবার আপনি চাইলে টাকা দিয়ে এড রান করে বা গুগল পাব্লিশারের মাধ্যেম ও মার্কেটিং করতে পারবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *