ফ্রিল্যান্সিং এর সহজ কাজ এর মাধ্যমে নিজেকে স্বাভলম্বী করুন।

ফ্রিল্যান্সিং এর সহজ কাজ

আসলামুআলাইকুম বন্ধুরা আশা করি ভালো আছেন। অনেকে খুব সহজে অনলাইন থেকে টাকা আয় করার জন্যে ভাবছেন। এবং খুব মরিয়া হয়ে উঠেছেন তাদের জন্যে এই নিবন্ধ। তাই স্বাগতম আমাদের এই নিবন্ধে। যারা ফ্রিল্যান্সিং এর সহজ কাজ খুঁজছেন তাদের জন্যে এটি নিঃসন্দেহে সঠিক জায়গা। 

এখানে কিভাবে আপনি অনলাইন থেকে ফ্রিল্যান্সিং করে খুব সহজে আয় করতে পারবেন সেই সম্মন্ধে অনেক তথ্য উপাত্ব আমরা দেওয়ার চেষ্টা করবো। খুব কম সময়ে আপনি অন্তত ১২০০০/= থেকে লক্ষ টাকা ইনকাম করতে পারবেন সেই সম্মন্ধে বলার চেষ্টা করব।  সাথেই থাকুন আশা করি আপনার মনের আশা পূর্ণ করতে পারবো।

ফ্রিল্যান্সিং এর সবচেয়ে সহজ কাজ কোনগুলো ?

আগে মানুষ জানত হয়ত ওয়েব ডেবেলপার কিংবা ওয়েব ডিজাইনার এর কাজ গুলি বোধয় অনলাইনে ফ্রিল্যান্সার রা করে থাকে ।আসলে না, আমরা অনেক কিছুই এখন ও জানিনা ।  ফ্রিল্যান্সিং এর সহজ কাজ সবচেয়ে কোন গুলি সেইগুলি নিয়ে কথা বলার চেষ্টা করবো । কারণ মানুষ এখন  অন্যের উপর নির্ভরশীল না হয়ে অনলাইন থেকে ইনকাম করার কথা সবসময় চিন্তা করেন। আপনি যদি নিজে খুব সহজে কোনো স্কিল শিখে অনলাইন থেকে ইনকাম করতে পারেন তাহলে কেন আপনি বসে থাকবেন। তাই আমরা এমন কিছু বিষয় নিয়ে আলোচনা করবো যেগুলি আপনার জন্যে খুব সহজ। এবং ইনকাম করতে পারবেন। নিচে কিছু স্কিল সম্মন্ধে বলার চেষ্টা করেছি 

ফটো এডিটিং 

ফ্রিল্যান্সিং এর সহজ কাজ হিসেবে ফটো এডিটিং একটি অন্যতম। এটির চাহিদা অনলাইন প্রচুর। আপনি অনলাইন গ্রাফিক্স ডিজাইনের মধ্যে বিশেষ করে ফটোশপের বেসিক কিছু টুলস এর ব্যবহার জানলে খুব সহজে ফটো ইডিটিং করে অনলাইন ইনকাম করতে পারবেন। 

কারণ এটি ফ্রিল্যান্সিং এর সহজ কাজ। ফটো এডিটিং লোকাল মার্কেটেও চাহিদা রয়েছে আবার অনলাইন মার্কেটে ও চাহিদা রয়েছে। মানুষের বিভিন্ন সময় সুন্দর দর্শনীয় ছবি ইডিটিং করার প্রয়োজন পরে। সে জন্যে অন্যান্য দেশের মানুষের মধ্যে খুব চাহিদা রয়েছে এই ফটো এডিটিং এর। এই স্কিল ডেভেলপের মাধ্যমে আপনি নিজেকে সাবলম্বী করতে পারবেন।

টি শার্ট ডিজাইন

টি শার্ট ডিজাইন ও ফ্রিল্যান্সার এর সহজ কাজ। কারণ এই টি শার্ট ডিজাইন নিত্যদিনের চাহিদা। আপনার আইডিয়া যতবেশি ততবেশি আপনি এই টি শার্ট ডিজাইন করে ইনকাম করতে পারবেন। এটির অনলাইন ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। আবার লোকাল মার্কেটেও খুব চাহিদা বেড়েছে।

আপনি আগে গ্রাফিক্স ডিজাইনের যেকোন একটি সফটওয়্যার ভাল ভাবে শিখে চাইলে আপনি ও এই কাজটি করতে পারেন। অনলাইন অনেক বায়ার রা আসে তারা ভাল মানের টি শার্ট ডিজাইনার দের খুঁজে থাকেন বিশাল অংকের টাকা দিয়ে। আপনি চাইলে সেই কাজ খুব সহজে করতে পারেন।  

ভিজিটিং কার্ড ডিজাইন 

ভিজিটিং কার্ড ডিজাইন একটি ফ্রিল্যান্সিং এর সহজ কাজ। ফটো এডিটিং এর মতো এটি নয়। হয়তো আরো একটু বেশি কিছু জানা লাগে এই ভিজিটিং কার্ড ডিজাইন করতে। ফটোশপের অনেক অংশ জানতে হয়। তবু ও তেমন কঠিন নই। ভিজিটিং কার্ড তৈরী করার জন্যে অনলাইন অনেক ক্লাইন্ট ফ্রিল্যান্সারদের খুঁজে থাকেন। 

এই স্কিল টি শিখেও আপনি খুব সহজে অনলাইন থেকে ইনকাম করতে পারবেন। কারণ এই ভিজিটিং কার্ড ডিজাইন যেমন লোকাল মার্কেটে ও খুব চাহিদা রয়েছে তেমন বিশ্ববাজারে ও ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। ভিবিন্ন কোম্পানিগুলি তাদের একাদিক এম্পলয়ীদের জন্যে ভিজিটিং কার্ড তৈরী করার লোক খুঁজে থাকেন। 

তাই আপনি অনলাইন এ যেকোন মার্কেট প্লেসে একাউন্ট খুলে এই কাজটি সহজে করতে পারেন। আমি বিভিন্ন রকম মার্কেট প্লেসের লিংক নিচে দিয়েছি। আপনি চাইলে সেখান থেকে ও এপ্লাই করতে পারবেন। তবে আপনি যেকোন একটি স্কিল শিখে তারপর মার্কেট প্লেসে একাউন্ট করবেন। 

ব্যানার ডিজাইন 

ব্যানার ডিজাইন ও একটি ব্যাপক জনপ্রিয় কাজ যা ফ্রিল্যান্সাররা খুব সহজে করে থাকেন। কারণ এখন অনেক ক্লাইন্ট তাদের অনলাইন ব্যবসার জন্যে তাদের সোশ্যাল মিডিয়া একাউন্টের জন্যে ব্যানার ডিজাইন করে থাকেন। আমরা যেমন ফেইসবুক বা টুইটার বা লিঙ্কডিন প্রোফাইলের জন্যে ব্যানার বানিয়ে থাকি টিক তেমনভাবে। 

সেই ব্যানার এর জন্যে তারা ফ্রিল্যান্সার খুজেঁন। আপনি আপনার মনের মাধুরী মিশিয়ে সুন্দর দর্শনীয় ব্যানার তৈরী করার মাধ্যমে এই কাজটি করতে পারেন। কারণ এটি ও অন্যান্যের মত খুব সহজ। তাই বেশি কসরত আপনার করতে হবে না। এই কাজটিও আপনি শিখে এখনি লেগে যেতে পারেন। 

ডাটা এন্ট্রি 

ফ্রিল্যান্সার এর সহজ কাজ বলতে আগে মানুষ শুধু ডাটা এন্ট্রি কে বুজতো। কারণ এই কাজটি অত্যন্ত সহজ। বিভিন্ন কর্পোরেট অফিসে তাদের সমস্ত ডাটা এক জায়গায় এন্ট্রি করার জন্যে ভার্চুয়ালি ফ্রিল্যান্সার খুঁজে থাকেন। 

যেমন সেলারি সিট্ ,এটেন্ডেন্স সিট্ কিংবা অফিসিয়ালি কাজগুলি এক জায়গায় সুন্দর ভাবে গুছিয়ে রাখার জন্যে তারা বিশাল অংকের টাকা দিয়ে ফ্রিল্যান্সার দের নিয়োগ দিয়ে থাকেন। আপনি চাইলে ভাল ভাবে অফিস ম্যানেজমেন্টের কাজগুলি আয়ত্ব করে ডাটা এন্ট্রির কাজ গুলি করতে পারেন ফ্রিল্যান্সার হিসেবে। 

আরো পড়ুন : মোবাইল দিয়ে কিভাবে ফ্রিল্যান্সিং করা যায়

লোগো ডিজাইন এর মাধ্যমে ফ্রিল্যান্সিং এর সহজ কাজ করুন

লোগো ডিজাইন এটি ও ফ্রিল্যান্সার এর সহজ কাজ হিসেবে বিবেচিত হয়। বেশির ভাগ অনলাইনে দেখবেন তাদের ব্যবসার সিম্বল হিসেবে বা চিহ্নের জন্যে লোগো ব্যবহার করে থাকেন।  যেমন আমরা ফেইসবুক,ইউটিউব বা বাংলাদেশের বিকাশের একটি লোগো আমরা দেখতে পায় ঠিক তেমন করে অনলাইনে বিভিন্ন কোম্পানির মানুষেরা তাদের ছোট বড় ব্যবসার জন্যে লোগো বানিয়ে থাকেন। 

এখন এই লোগো ম্যাকারের জন্যে বড় ছোট সমস্ত ব্যবসায়ীরা অনলাইন খুঁজ করেন। এবং একটা বড় অঙ্কের টাকা দিয়ে লোগো বানিয়ে নেন। তাই এই কাজটি আপনি চাইলে করতে পারেন এবং প্রচুর টাকা ইনকাম করতে পারেন। এই লোগো তৈরী করা কমপক্ষে ৫০ ডলার থেকে ৫০০ ডলার পর্যন্ত হয়ে থাকে। 

প্রোডাক্ট এডিটিং 

প্রোডাক্ট এডিটিং মানে হলো কোনো ই-কমার্স ব্যবসার প্রোডাক্ট কে সুন্দরভাবে গ্রাফিক্সের মাধ্যমে দর্শনীয় করে মানুষের নজরে আনা। কারণ ই-কমার্স ব্যবসার জন্যে অনেক বায়ার আসে যারা তাদের ই-কমার্স ব্যবসার প্রোডাক্ট কে সুন্দরভাবে সাজিয়ে দেওয়ার জন্যে দর্শনীয় করার জন্যে অনেক বড় অংকের টাকা দিয়ে এক্সপার্টদের হায়ার করে থাকে। 

এবং এটির চাহিদা ও দিন দিন বেড়েই চলছে। অনলাইন জগতে এটিও ফ্রিল্যান্সারদের জন্যে  খুব সহজ একটি কাজ। আপনি যদি এই প্রোডাক্ট এডিটিং এর মাধ্যমে নিজেকে ফ্রিল্যান্সার হিসেবে দাঁড় করতে পারেন তাহলে আপনার আর পিছে ফিরে তাকাতে হবে না। 

সোশ্যাল মিডিয়া ম্যানেজার 

সোশ্যাল মিডিয়া ম্যানেজার হিসেবে ফ্রিল্যান্সাররা নিজেকে তুলে ধরেন অনলাইন জগতে। কারণ এটিও ফ্রিল্যান্সার এর সহজ কাজ। সোশ্যাল মিডিয়া ম্যানেজমেন্ট বলতে আসলে অনলাইন যে সমস্ত সোশ্যাল মিডিয়া রয়েছে যেমন ফেইসবুক ,টুইটার ,লিঙ্কডিন এবং পিন্টারেস্ট ইত্যাদি। এইগুলুর মাধ্যমে তারা নিজেদের ব্যবসা পরিচালনা করে থাকেন।

এখন এই সোশ্যাল মিডিয়াগুলি পরিচালনা করার জন্যে তাদের ফ্রিল্যান্সার প্রয়োজন হয়। এবং তাদের কে তারা অনলাইন নিয়োগ দিয়ে থাকেন মাসিক অনেক টাকার বিনিময়ে। আপনি ও চাইলে এই মার্কেটিং এবং সোশ্যাল মিডিয়া ম্যানেজমেন্ট এর কাজগুলি শিখে নিজেকে প্রকাশ করার মাধ্যমে ইনকাম করতে পারবেন।  

ফটোগ্রাফার 

ফটোগ্রাফার হতে পারে আপনার ফ্রিল্যান্সার এর সহজ কাজ। কারণ এটি খুব সহজ, কারণ এতে কোনো জুট জামেলা নেই। আপনি নিজের মত করে ছবি তুলবেন এবং আপনার নিজের মতো করে ছবিগুলিকে এডিটিং করবেন। এবং অনলাইন আপলোড করবেন। সেই ছবিগুলি আপনি ফ্রিল্যান্সার হিসেবে বিক্রি করে একটা বিশাল অংকের টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

 তবে হ্যা আপনার কাছে অবশ্যই দুই একটি বিষয় ভালভাবে জানতে হবে সেটি হচ্ছে। একটি ভাল মানের ক্যামেরা থাকতে হবে। এবং ছবি এডিটিং কিভাবে করে সেই সম্পর্কে ভাল জ্ঞান থাকতে হবে। তাহলে আর কিছুই আর প্রয়োজন নেই। এই ফটোগ্রাফার হিসেবে আপনি ফ্রিল্যান্সারের সহজ কাজ করতে পারবেন। 

ফ্রিল্যান্সার হিসেবে নিজেকে গড়ে তুলতে হলে কি কি প্রয়োজন

ফ্রিল্যান্সার হিসেবে নিজেকে গড়ে তুলতে হলে আপনি উপরের বর্ণিত সহজ কাজ গুলি আয়ত্ব করার মাধ্যেম ও নিজেকে গড়ে তুলতে পারবেন। তবে মনে রাখতে হবে আপনি যেকোন একটি কাজ ধৈর্য সহকারে আগে আয়ত্ব করতে হবে। আপনি কোনো কাজ শিখাঁর আগে অনলাইন কাজ করতে যাবেন না। 

নিজেকে ফ্রিল্যান্সার হিসেবে গড়ে তুলতে হলে ধৈর্য বিশ্বাস আর কঠোর পরিশ্রম এর দ্বারা নিজেকে তুলতে পারবেন। আপনি যতবেশি কঠোর হবেন ততবেশি আপনি সাফল্যকে খুব কাছে দেখতে পারবেন। হতাশা গ্রস্ত হবেন না।  

সবচেয়ে জনপ্রিয় ফ্রিল্যান্সিং কাজ

সবচেয়ে জনপ্রিয় ফ্রিল্যান্সিং কাজের কথা বলতে হলে গ্রাফিক্স ডিজাইন,ওয়েব ডিজাইন এবং ডেভেলপমেন্ট কথা আগে বলতে হবে। কারন এইগুলি যেমন বেশি চাহিদা তেমন সময় ও খুব বেশি যায় খুব ভালো করে আয়ত্ব করার জন্যে।

তবে সহজ ফ্রিল্যান্সিং কাজ এর ক্ষেত্রে আপনি ডাটা এন্ট্রি এবং ফটো এডিটিং এবং ফটোগ্রাফার এর কাজ গুলিও খুব জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে।  

ফ্রিল্যান্সিং সেক্টর সমূহর জন্যে কিছু মার্কেট প্লেসের নাম 

শেষ কথা ফ্রিল্যান্সিং এর সহজ কাজ সম্পর্কে 

ফ্রিল্যান্সার এর সহজ কাজ সম্পর্কে আর তেমন কিছু বলার নেই। তবে নিত্য দিন নতুন নতুন পেশা উন্মুক্ত হচ্ছে আপনি ও লেগে পড়ুন নিজেকে স্বাবলম্বী করে তুলুন যেকোন একটি সহজ কাজের মাধ্যমে ফ্রিল্যান্সার হিসেবে নিজেকে গড়ে তুলুন। ধ্যনবাদ। 

সচরাচর জিজ্ঞাসিত প্রশ্নাবলি 

ছাত্রদের জন্যে সহজ ফ্রিল্যান্সিং কাজ কি ?

ছাত্রদের জন্যে সহজ ফ্রিল্যান্সিং কাজ হচ্ছে বিশেষ করে ফটো এডিটিং এবং ফটোগ্রাফার এর কাজগুলি। 

ইনকাম করার জন্যে কোন ফ্রিল্যান্সিং কাজটি খুব বেশি উত্তম ?

ফ্রিল্যান্সার হিসেবে ইনকাম করার জন্যে সহজ কাজ হলো সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং এবং ফটো এডিটিং। খুব সহজে এই কাজগুলি আয়ত্ব করতে পারবেন কোন জামেলা ছাড়াই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *